দুটি কবিতা

চন্দন ঘোষ

চন্দন ঘোষ পেশায় চিকিৎসক হলেও, তাঁর নেশা সাহিত্য সাধনা। এবং কবিতাই তাঁর সাহিত্যচর্চার প্রিয়তম মাধ্যম। পাশাপাশি ছোটোগল্প এবং কবিতা বিষয়ক প্রবন্ধও লেখেন। প্রথম প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ 'শিকড়ে লেগেছে অশ্রু' (2011)। 2013-এ প্রকাশিত হয়েছে 'মাৎসুও বাশো ও জ্যোৎস্নাময় হাইকু' - হাইকু বিষয়ক প্রবন্ধের সংকলন।




হুন্ডারের অন্ধ উট

ওদের গন্তব্য শুধু মরু ও তুষার
ওদের পথের পাশে সাদা সাদা রাজার মুকুট
অনাদি কালের উট এইখানে
বাঁধা আছে, পালাতে পারেনি একেবারে
ফিরতে পারেনি তার নিজস্ব মোকামে

আজকে মানুষ আসে রঙীন, বাচাল
দর্শনবিলাসী সব দুদণ্ড-মানুষ
অন্ধ উট শুধু যায়
আর ফিরে আসে
অথচ দিনের শেষে কোনোখানে পৌঁছুতে পারে না।

ছোটোমোটো লোকের জীবন


চিরদিনই লিখতে চেয়েছি আমি
ছোটোমোটো লোকের জীবন
সাদামাটা বোকাসোকা লোক যে কিনা চা খেতে গিয়ে
রোজ রোজ সাদা পাঞ্জাবিতে ফেলে দেয়
আর হলুদ ডালের ফোঁটা অবশ্যই নতুন জামায়
নিজের বিয়ের ডেট মনে না রাখতে পেরে
বউয়ের ধমক খায় খুব আর
আড়াইটার আপ ট্রেন ধরতে গিয়ে
প্রতিদিন হন্তদন্ত তিনটেয় ডাউন প্ল্যাটফর্মে দাঁড়ায়
অফিসের পথে থমকে গিয়ে সকালের জড়োয়া আলোয়
ডাকবাংলো মোড়ের আকাশে
গোলা পায়রার অবান্তর ওড়াউড়ি দেখে

এইসব ছোটোমোটো অসম্ভব লোক,
এইসব তুচ্ছ ওঠাপড়া
চাঁদের ওপর দিয়ে একলা হেঁটে যাওয়া
রাত্তিরে বেহেড, ল্যাম্পপোষ্টে পা তুলে দাঁড়ানো
জঙ্গলে পুজো-না-পাওয়া মন্দিরের আতুর বিলাপ
দেখতে চেয়েছি আমি চানঘরে ছিদ্রে চোখ রেখে

লিখতে চেয়েছি শুধু সেইসব
হুদোমুদো লোকের জীবনী
প্রেমিকাকে রিং করতে গিয়ে রোজ রাতে যারা
প্রেমিকার প্রেমিককে আচম্বিতে ফোনে পেয়ে যায়।

ফেসবুক মন্তব্য