উৎসবে ফেরো

আলো বসু


উৎসবের মদিরা মাখা রোদ
হাইরাইজের মাথা ছুঁয়ে
কানাগলির শ্যাওলা দেয়াল বেয়ে নেমে আসছে
অনন্তের পথে বেজে উঠলো আলোর বেণু
আরও এক সকরুণ বেণু গভীর গহনে
চিদাকাশে পেঁজা তুলো
ছেঁড়া খোঁড়া স্মৃতির ওড়াউড়ি
কথা ছিলো বুক জলে দাঁড়িয়ে যেমন
একটি একটি করে পাপড়ি জাগায় শতদল
প্রতিকূলেও থাকবো জেগে উৎসব ঝলমল
কে কখন নিভিয়েছি আলো!
দুরন্ত ঝঞ্ঝার ঘরে বন্দিতকে করেছি বন্দী
আপনকে দিয়েছি পরবাস
তারপর দুদিকেই পথ চলে গেছে
আপনহীন আড়ম্বরে ডুবে গেছে সব
হঠাৎ কোন কোন উৎসব দিনে স্মৃতিভার, পুরোনো অসুখ
আপন মুখের খোঁজে বিপরীতে হাঁটা
হ্যামলিনের বাশিওয়ালার মতো কোন এক বাঁশি
বিষাদের সুরে সুরে টেনে নিয়ে যায়.....
তুমিও কী টের পাও সে সুরের টান?
বিপরীতে হাঁটছো এখন?
এসো তবে, দেখা হোক কোন এক বিপরীত টানে

অলংকরণঃ অরিন্দম গঙ্গোপাধ্যায়

ফেসবুক মন্তব্য