ডায়াস

তিলোত্তমা বসু

শ্রোতা নেই, স্রোত তাতে থামে না কখনো।
শূন্য গ্যালারীতে একা ঝড়ের মুদ্রায় নাচি... বৃষ্টি নাচ।
নাচি আর নিজেকে ভিজিয়ে কেরোসিনে
আগুনকে ভ্যাংচাই মুখ।
দুঃখকে ওড়াই... ধুলো-অস্তরাগে বুঝি রাধারঙ আবির ছড়ালো।
মেঘ থেকে চুঁয়ে চুঁয়ে গোলাপি সুগন্ধ ধোঁয়া... চাঁদের আভাস...
ডাকলো আমায়... যেভাবে ডেকেছে নিশি দরজা খুলে__
রাত্রি উদলা করে বেরিয়ে পড়েছি অবান্তর...
তারপর শূন্য ডায়াসে এই, নাচতে নাচতে ঝড় গর্জন চল্লিশা
যখন সম্বিত ফেরে, রাত শেষ
ঘুঙুরের কেটে বসা দাগ থেকে
দেখি আমি ঘুঙুর খুলছি...

ফেসবুক মন্তব্য