পুনঃ রাজা রাণী বিষয়ক

রাজীব ভট্টাচার্য


মাথার উপর আশ্চর্য জ্যোতিচক্র
ঘুরতে দেখেছি উদ্বাস্তু শিবির থেকে
প্রথম অলৌকিক আলো দেখেছি বদ্ধ
সীমানা থেকে দূরে
তোমার রাজকীয় চামর দুলে
রেডকার্পেট রাতে বিলাস ভ্রমণে
অজস্র তারা খসে পড়ে
আহাঃ কী ফুলঝুরি আলো!
পরাজিত এক সৈনিক দীর্ঘ পথ হেঁটে এসে
তোমার রূপমদিরার শেষ বিষটুকু পান করে
অণু পরমাণুতে মিশে যাবে।
অর্থজয়ী রাজা নিপুণ কৌশলে প্রতিদিন
ভরে তুলেন তোমার ভাড়ার বৈভব
একটার পর একটা গ্রহ উপগ্রহ উপহারে
বিদেশী স্বপ্ন পাল তুলে নৈশ টেবিল নৌকো হয়ে যায়
মিলিয়ন ডলারের সাথে সদাগরী রমণ শেষে রাজা
অশ্লেষে লালাময় নিদ্রা গর্ভে চলে যান
তোমার জঠর ছুঁয়ে।
অন্যদিকে তুমি প্রতিরাতে স্বপ্নশিকারি হয়ে
ওঠো ঈশ্বরী স্পর্ধার মোহময়তায়
কাগজে কলমে কাব্যের পৃষ্ঠায়
ফাঁকা ক্যানভাসে কেবলই
'ময়না দ্বীপ' আঁকো আশ্চর্য মহিমায়...
অলীক সে দ্বীপে কোনদিন যাওয়া হবে না
জেনেও পথভ্রষ্ট নাবিক ডুবে মরে যায়
আর তুমি দূর থেকে করুণা অশ্রুতে সিক্ত
কর তাদের ব্রাত্য আত্মা
ততক্ষণে ভোর হয়, পাখি ডেকে ওঠে
মুক্তির আনন্দে, আকাশে ওড়ে যায়
এপার ওপার।
সকালের আলোর সাথে তোমার ঈশ্বরীয়
হাসি ছড়িয়ে পড়তে থাকে আনাচে-কানাচে
আমাদের ভাঙা ভাঙা 'ভুবন ডাঙায়'...!

অলংকরণঃ অরিন্দম গঙ্গোপাধ্যায়

ফেসবুক মন্তব্য