তিনটি কবিতা

লিপি সেনগুপ্ত



১॥

গৃহী সন্ন্যাসী


তৃপ্তি আসেনি
তাই না এমন পোড়া রোদে
ঠায় দাঁড়িয়ে থাকা!

সেইসব নদী
শুকিয়েছে জৈষ্ঠে
ঠোঁট ফাটা রক্তের খাল,
মজা পুকুরের পাঁক—
কই'য়ের দাপাদাপি

আরো কিছুকাল
বাতাসে ঘূর্ণি বোল
পিঁড়িটি আঁচলে মুছে দিলে
আচমন করে আহার শুরু করবেন
গৃহী সন্ন্যাসী...



২॥

বঁড়শি



খালের ধারে বঁড়শি হাতে বসেছি
বৃষ্টি কয়েক পশলা!
চুনো চ্যালা ফুড়ুৎ ফুড়ুৎ
পাথর শ্যাওলার আড়াল
ধরতে গেলেই ফসকাচ্ছে

সকাল গড়িয়ে সন্ধ্যা
রাত নামলে টোপটি গিলে
পঞ্চব্যাঞ্জনে আহার সাজাই
সে এলে লন্ঠনটি উস্কে
বাতাস করি

ঘাটের কাছে
নৌকা এসে লাগে
এবার ভেসে যাওয়াই কাজ।


৩॥

বহিরঙ্গ বাস


বহিরঙ্গ বাস'টি ছেড়ে
বাইরে এসো
বেণী বাঁধবে না?
এলোমেলো কালো মেঘ পিঠে!
এখনও?
বেলা পড়ে এল
দৃষ্টি অস্পষ্ট ঘাটে!

ঘোলা জল কানায় কানায়
ভরা বর্ষায় ডুবে
ওপারে ওঠার পর
বাস'টি যত্নে রেখে
বঁধু, অঙ্গটি ধু'ও

এক ডুবে তুমি আর
কতদূর যেতে পারো!

অলংকরণঃ কল্লোল রায়

ফেসবুক মন্তব্য