নভেম্বরের কবিতা

সুকৃতি

এক

এতো এতো অন্ধকার ছিল
আমার ভিতরে! জানাই থেকে যেতো
যদি না জানতে পারতাম
তুমি আলো, আলোলিকা…

আমাকে বর্ষায় বসন্ত করেছো দান
শরতে দিয়েছো ব‍্যাথা মনে,
হেমন্তে দিয়েছো তান তুমি
কাকে বলে ব‍্যাথার আরাম…

অথচ বসন্তকাল এসে
যদি দ‍্যাখে ফিরে তুমি
আসোনি এখনও এই শীতে!

কী জবাব দেবো তাকে?
হাতে হাত ছুঁতে না পারার ব‍্যর্থতায়

আমাকে পুড়তে দাও
একটি ক্লীবের মতো শূণ‍্যতায়
একা, অমলীন…

দুই

বৃষ্টির ভিতরে পথনাটিকা চলছে
হলুদাভ রোদের নগর

তবু কারা যেন গুপ্তধন
ফেরি করে ফেরে

গলায় দাঁতের দাগ পুষে
হরিণী ইশারা করে,আও

তিন

দেহকে ইশারা করে দেখিয়ে দিয়েছো সিঁড়ি
তারপর ছুড়েছো পাথর ভাবাবেগে।

আর কোনও ভিটামিন নয়
খনিজ লবণ নয়
আমি ভুগি প্রেমের অভাবে, নিরন্তর…

তোমার পাথরও ভালোবাসি।

ফেসবুক মন্তব্য