নৈর্ব্যক্তিক আলোয় ভাষা লুকোচুরি

পিয়ালী বসু ঘোষ



অন্ধদের গ্রামে জোনাক জ্বলে রোজ
ওই উঁচু গাছটার ওপরে যেখানে কবি জটায় ধারণ করেন মেঘ
তারও উঁচুতে উঠে জোনাকগুলো আলো দেয়

অন্ধদের আলো দরকার হয় না,
জানতে পেরে গ্রামের মাটিতে সেই আলোর বিন্দুগুলো ভেঙে গুঁড়িয়ে গেল
যেই হেমবর্ণ পাতার মাথায় নেমে এলেন স্বাতী, চিত্রা, অরুন্ধতীরা

কবি টাল সামলাতে না পেরে হাত তুলে বলেন
এসো হাতে হাত রাখি
চোখে চোখ
আর নাভিতে নোঙর করে প্রবেশ করি আলোর শহরে
গুলঞ্চ ঝোপে পাহারায় থাক জোনাক

নিরাভরণ নক্ষত্রের শরীরে নিরাবরণ কবি হিরন্ময় অরণ্য দেখেন
মেধাহীন যৌনতায় অবান্তর ছটফট করেন তিনি
একে একে ফুরিয়ে আসে নক্ষত্রের বাসর
কবির সবটুকুই ছদ্ম একথা সত্য জেনে ফিরে যান নক্ষত্ররা

অন্ধ গ্রামের অন্ধ কবির বিছানায়
টিমটিম করে এখন, একমুঠো অন্ধ জোনাক।

ফেসবুক মন্তব্য