পোকামাকড় ও ভ্রান্তিবিলাস

চয়ন ভৌমিক

১)
বিবাহজীবন তুমি নিরবধি।

তবুও পোকা কামড়েছিল কখনো,
ঘা, ঘাতক হতে চেয়েছিল।

সম্মোহনের চোখ বুঝতে দেয়নি -
একমাত্র তুমি হে নহবতের সানাই,
পিষে মেরে ফেলতে পারো বিষধরকে...

মলম লাগিয়ে দিতে পারো সব অসুখে।

২)
বৃষ্টি নামে,
জলে ভরে যায় মাঠ,
পোকারা সুযোগ বুঝে
উঠে আসে খাটে, বিছানায়,
অন্ধকার হলে কামান্ধ হয় -
দরজার কোনায় ডিম পাড়ে।

জানে না
রোজ ঘর পরিষ্কার হয় আমার

গুটির মধ্যের লার্ভাকে
রেয়াত করা হয় না কোথাও।

৩)
মশারির বাইরে উড়তে থাকা
মশাদের দেখছি।

ছিদ্র খুঁজছে...
ত্বকের নীচে, মনের নরমে ওম খুঁজছে
নৃশংসতাপ্রিয় বিলাস যেন।

রক্তলোলুপ হুলের ভুখ অনন্ত।

যদিও ঘরের মধ্যের এই ছোট্ট ঘরে
প্রবেশ নিষিদ্ধ সমস্ত অনুপ্রবেশকারীর।

ফেসবুক মন্তব্য