তিনটি কবিতা

সর্বাণী গোস্বামী



নদী

পাথরটাথর সব উল্টিয়ে খুঁজছি,
এরকম তো হতে পারেনা,
কোথাও একটা ঢেউয়ের গল্প থাকেই,
ঢেউ,
ভেসে যাওয়া,
এবং তদুপরি ভাসিয়ে দেওয়া।

এমন তো হতে পারেনা যে
নদী হলে,
আর এতোটুকু ও কোথাও ভেসে যাওয়ার গল্প নেই,
পাড়ভাঙার ইতিহাস,
থইথই কূলছাপিয়ে দেওয়ার বন্য ইচ্ছে,
অথবা, দাঁতেদাঁতে চিপে বাঁধের সীমানায় থাকা।

সত্যি নদী হলে,
পাথরের নীচে কুলুকুলু জলটুকু থাকেই,
থেকেই যায়!


আয়না

একদুটো ঋণ আছে আয়নার ও কাছে।
মেঠোপথ,
এঁকেবেঁকে গিয়েছে ভেতরে,

একদুটো ঘুঘুডাকা একলা দুপুর,
একদুটো চুপকথা, প্রগলভ ভীড়ে!

দুফোঁটা চোখের জল,
অহেতুকই জানো?

আয়নাই জানে শুধু, জানে সে কারণও,

পারদে লুকিয়ে রাখে, মুখোশের আড়ে!


নাস্তিক


বারবার বলেছিলে,ঈশ্বর নেই।

তোমার বোস্টুমী ভোর,
আমার উঠোন ছুঁয়ে গেলো, নিজের মনেই,
তারপর থেকে,

সারাদিন কোলঘেঁষে দুষ্টু কানাই!

ফেসবুক মন্তব্য