নীল বোতাম খুলে হাসছে জানালা

দেবাশিস মুখোপাধ্যায়



রাধা হয়ে আছে সন্ধ্যার শরীর । পাড়াকে কীর্তনে পেয়েছে ।
করতাল আর খোলের যুগলবন্দী আকাশকে একটি গৌরচন্দ্রিকা দিল ।
রাগ আগে পূর্ব পেলে মেঘেও কৃষ্ণ দর্শন
বাঁশির ঘুম ভেঙে গেলে রান্না পুড়ে যায় । পেখম পাবার আগে ময়ূরটি খুঁজি ।
প্রেমের শীতল কলসটি গ্রীষ্ম চায় । কলঘরে ঝরে যাচ্ছে রজস্বলার কান্না ।
দেবতাটিকে তবে কী দেবে !
সুদর্শন নাকি পাঞ্চজন্য !
ব্রজের ধূলির ভিতরে গোঁসাই গোপী হয়ে পড়ে । নিঃসঙ্গ । একাকী । মন্থর সময় ।
অতুল প্রসাদে ডোবে । রজনীকান্ত পায় । পা পা করে চলে যাচ্ছে গোপাল । রাত্রি কখন পরমোৎসব
শবের ভিতরে ভালোবাসা বসে উচ্চারণ করছে নতুন বাসার খবর ।

ফেসবুক মন্তব্য