কালো বেড়াল

শবরী রায়


এইমাত্র আড়মোড়া ভাঙছিল
একটা কুচকুচে কালো বেড়াল
আমি শুয়েছিলাম, আর
হাই তুলে আমার ভেতর থেকে বেরিয়ে
আরো বেশ খানিকটা আড়মোড়া ভেঙে
পা টিপেটিপে বেরিয়ে গেল সে

বাইরের রঙ ধূসর এবং কালো
নিষ্পত্র কালো ডালে
সব একলা একলা কালো পাখি
এখন ঘুমোবে

বেড়ালটা একটা লুপ্তপ্রায় হাতে টানা
রিকশার পাশে ওৎ পেতে রইল
চালকহীন রিকশাটা সাষ্টাঙ্গে প্রণাম করছিল
শ্মশানকালী মন্দিরের পাশে

সারাদিনের পূজো সেরে
ভক্তহীন মন্দিরের পুরোহিত
হেঁটে যায় রিকশার পাশ দিয়ে
বেড়ালটা তখনো দাঁড়িয়ে

কী ভেবে আরো একবার আড়মোড়া ভাঙলো
থ্রি-ডায়মেনশান এর এই ছায়াছবিতে
আধিভৌতিক কালো আরো গাঢ়তর
এবং ধূসর আরো ফিকে করে
শীতে কাঁপতে কাঁপতে
পুরোনো কাঁসার গন্ধ মাখা চাঁদ উঠল

আকাশের দিকে একবারও না তাকিয়ে
পা টিপে টিপে রাস্তা পার হল
সেই কুচকুচে কালো বেড়াল

ফেসবুক মন্তব্য